মেহনতি মানুষের দৈনিক

আজ ,

লক্ষ্মীপুর থেকে প্রকাশিত ।। রেজি: নং : চ- ৬৩৯/১২।।

 উপকূল ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

উপকূল প্রতিদিন ডেস্ক: উপকূল ফাউন্ডেশন নোয়াখালী জেলা ইউনিটের উদ্যোগে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় অসহায় শতাধিক মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।
নভেল করোনা ভাইরাসের সংকটময় পরিস্থিতিতে আর্তমানবতার সেবায় উপকূল ফাউন্ডেশনের গৃহিত বিভিন্ন কর্মসূচীর আওতায় ১৭ মে ও ১৮ মে ২০২০ নোয়াখালী জেলা ইউনিট সমাজের শ্রমজীবী, দিনমজুর ও দৈনিক আয়ের উপর নির্ভরশীল মানুষের মাঝে এ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন। নোয়াখালী জেলা ইউনিটের সভাপতি মোঃ মিনহাজুল আমীন শিবলু, সদস্য ফেরদৌস নেওয়াজ আদনান, সংগঠনের স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবীসহ এলাকার স্থানীয় ব্যাক্তিরা এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন। ফাউন্ডেশনের সেচ্ছাসেবীরা জানান, দিন মজুর অসহায় শ্রমজীবি মানুষের পাশে সমর্থানুযায়ী দাঁড়ানো আমাদের নৈতিক কর্তব্য। দরিদ্র মানুষের মাঝে সচেতনতার তথ্য ও খাদ্য সামগ্রী বিতরনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।

উপকূল ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যন এম. আমীরুল হক পারভেজ চৌধুরী মানবিক সেবায় সকল সেচ্ছাসেবীকে যার যার অবস্থান থেকে এগিয়ে আসার আহবান জানান। সকলকে আতংকিত না হয়ে সামাজিক ও শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখে নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করার অনুরোধ করেন। করোনাকে ভয় না করে জয় করার পরামর্শ দেন তিনি।  তিনি আরো আশাবাদ করেন  সকলে সহযোগিতায় সঙ্গনিরোধ পালন করে বাংলাদেশ দ্রুত করোনা থেকে মুক্ত হবে।

দেশের উপকূলের জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে “সমৃদ্ধ উপকূলে মুক্তির হাসি “এই স্লোগানে কাজ করে আসছে উপকূল ফাউন্ডেশন। কোভিট ১৯ সংকটময় পরিস্থিতিতে উপকূলের ভোলা, বরশিাল, পটুয়াখালী, বরগুনা, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, চাঁদপুরসহ বিভিন্ন উপকূলীয় জেলা সমূহে ফাউন্ডেশনের সেচ্ছাসেবীরা আর্তমানবতার সেবায় ফ্রি মাস্ক বিতরণ, মাস্ক পরিধান করা, প্রয়োজনে রুমাল/কাপড়কে মাস্ক বানিয়ে পরিধান করা, খাদ্য সহায়তা, সাবান/সূফি ওয়াটার দিয়ে হাত ২০ সেকেন্ড সময় নিয়ে ধৌত করা, জনসমাগম এড়িয়ে চলা, গণপরিবহন ত্যাগ করা, হ্যান্ড স্যানেটাইজার ব্যবহার এর সঠিক পরামর্শ ও তথ্যের প্রচারণাও করে আসছে উপকূল জুড়ে। এছাড়াও সেচ্ছাসেবীরা বিভিন্ন স্থানে হাত জীবাণু মুক্ত করার সূফি ওয়াটার তৈরীর নিয়মাবলী মানুষের মাঝে প্রচার করেন। হাত না ধুয়ে নিজের মুখমণ্ডল স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকার আহবান জানান। বসত বাড়ির আশে পাশে সব সময়ে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখাসহ সমসাময়িক কৃষি ও মৌসূমী সবজি চাষের পরামর্শ দেন ফাউন্ডেশনের সেচ্ছাসেবীরা। সমর্থানুযায়ী স্থানীয় পর্যায়ে দুন্দুল, করলা, শশা, পুঁইশাক, ঢেঁড়শ ইত্যাদির ফ্রি বীজ সহায়তা এবং রোপনে উৎসাহ প্রদান করেন। ফাউন্ডেশনের সেচ্ছাসেবীরা মনে করেন সকলের সার্বিক সহযোগিতায় সমৃদ্ধ উপকূলে মুক্তির হাসি ফুটে উঠবে।

Print Friendly, PDF & Email
Spread the love



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *